নিজের বুকের দুধ বিক্রি করে আয় করেছে কোটি টাকা - আমাদের পৃথিবীতে এমন কিছু  অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে যা দেখা বা শোনার পর নিজেকে বিশ্বাস করতে কষ্ট হয়। ঠিক তেমনি একটি ঘটনা আজকে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। একজন মধ্য বয়সী নারী তার নিজের বুকের দুধ বিক্রি করে ইনকাম করেছেন প্রায় কোটি টাকা। ঘটনাটি শুনতে অনেকটা কাকতালীয় মনে হলেও এটি একটি সত্য ঘটনা। 


অনেকে ঘটনাটি শোনার পর বিশ্বাস করতে পারবেন না। তাই আমরা পুরো বিষয়টি নিশ্চিত করতে আপনার সামনে ঐ নারীর সকল বিষয় গুলো  আপনাদের সামনে তুলে ধরতেছি। যদিও এই ঘটনাটি আমাদের দেশের নয়। ঘটনাটি ঘটেছে সাইপ্রাসে। 


সাম্প্রতিক সময়ে ব্রিটিশ জনপ্রিয় গণমাধ্যম ইনডিপেনডেন্ট এমনি এক তথ্য প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে-সাইপ্রাসের রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ(২৪) নামের এক মধ্য বয়সী নারী তার নিজের বুকের দুধ বিক্রি করে মাসে আয় করেছেন প্রায় ৫১ হাজার ৪৪৮ টাকা। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে রাফেয়েলা ল্যাম্পরুউ নিজের বুকের দুধ বিক্রি করে গত ৭ মাসেই আয় করেছেন কোটি টাকা। 


নিজের বুকের দুধ বিক্রি নিয়ে রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ গণমাধ্যমকে দেয়া তথ্য অনুযায়ী জানা যায় - তিনি বলেন মায়ের বুকের দুধের কোন বিকল্প নেই,, তাছাড়া মায়ের বুকের দুধে রয়েছে নানান পুষ্টি গুণ যদিও বা বয়স্কদের জন্য মায়েদের দুধ পান করা নিষিদ্ধ। কিন্তু এতো নিষিদ্ধের পরও পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে অনেকে এই দুধ পান করেন। রাফেয়ালা জানিয়েছেন পশ্চিমা দেশগুলোর যেসকল পুরুষরা বডি বিল্ডার করেন তাদের কিছু অংশ পুরুষ নারীদের বুকের দুধ পান করেন। 


সাইপ্রাসের রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ তার সন্তান জন্ম নেয়ার পর হঠাৎ করে খেয়াল করেন তার সন্তান বুকের দুধ পান করার পরও বুকে অনেক দুধ জমা থাকতো। এরপর তিনি তার অতিরিক্ত বুকের দুধ স্হানীয়  বিভিন্ন এলাকার অসহায় ও পুষ্টি হীনতায় ভুগছেন  এমন বাচ্চাদের জন্য ফ্রিতে দুধ দিতেন। এভাবে বেশ কিছু দিন চলতে না চলতে রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ, র দুধের ব্যাপক চাহিদা দেখতে পান। 


এরকম ভাবে বেশ কিছু যেতেই কিছু অদ্ভুত মানুষের সাথে পরিচয় হয় রাফায়েলা ল্যাম্পরুউয়ের সাথে। রাফায়েলাকে প্রস্তাব দেন তার বুকের দুধ পুরুষদের জন্য সরবরাহ করা যেতে পারে। বিশেষ করে যা ব্যায়াম বা জিম করেন তারা নাকি নারীদের বুকের দুধ পান করেন। প্রথমে রাফায়েলার কাছে বিষয়টি কিছুটা বিব্রতকর মনে হলে পরবর্তীতে তিনি প্রকাশ্য তার নিজের বুকের দুধ বিক্রি করতে থাকেন। 


আমরা ব্রিটিশ গণমাধ্যমের দেয়া তথ্য অনুযায়ী আরো জানতে পারি রাফায়েলার একটি ফেসবুক গ্রুপ আছে যেখানে প্রচারের মাধমে তিনি তার বুকের দুধ বিক্রি করেন। প্রতি লিটার দুধের দাম নেন ১ ইউরো যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১ শত দুই টাকা। রাফায়েলা ল্যাম্পরুউ এখন পর্যন্ত প্রায়  ৫০০ লিটার দুধ বিক্রি করেছেন। অবশ্য  মধ্যে বয়সী এই নারীর দুধ বিক্রির বিষয়টি নিয়ে তার স্বামীর কোন আপত্তি নেই বরং তার স্বামী দুধ বিক্রি বিষয়ে সহযোগিতা করেন। 


বর্তমানে রাফায়েলা অনলাইন ডিজিটাল পদ্ধতিতে তিনি বুকের দুধ বিক্রি করেন। এজন্য তার একটি নিজস্ব ই কমার্স সাইট রয়েছে। যেখান থেকে তিনি প্রতিদিন পর্যাপ্ত গ্রাহক পান। নিজের অভিজ্ঞতা থেকে রাফায়েল জানান- যে সকল গ্রাহক আমার বুকের দুধ সংগ্রহ করেন তারা জানিয়েছেন পেশী শক্তি বাড়ানোর জন্য নাকি বুকের দুধ অত্যান্ত কার্যকরী। এজন্য যারা পেশী শক্তির বাড়াতে চায় তারা বিভিন্ন রাসায়নিক জাতীয় খাদ্যগুলো পরিহার করে নারীদের বুকের দুধকেই বেশি গুরুত্ব দেন। 


এদিকে রাফায়েল ল্যাম্পরুউ তার বুকের দুধ পান করে কেউ যেন শারীরিক ভাবে অসুস্থ হয়ে না পরেন এ জন্য তিনি কয়েক দিন পর পর ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী নিজেকে মেডিকেল চেকআপ করিয়ে নেন। এখন পর্যন্ত তার শরীরে কোন সমষ্যা দেখা দেয়নি। 

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন