মাত্র ৫ মিনিটে গায়ের কালো রং ফর্সা করার সহজ কিছু উপায়- ১০০% কার্যকরী  


আমরা জন্মগত ভাবে কেউ ফর্সা, কেউ শ্যামলা আবার কেউ কালো হয়ে থাকি। যার গায়ের রং যেমনি হউক না কেন, সবাই চায় তার গায়ের রং টা আরেকটু উজ্জ্বল ও ফর্সা হউক। বিশেষ করে যাদের গায়ের রং কালো তারা প্রতিনিয়ত নানান দেশি বিদেশি প্রসাধনী ব্যবহার করেন গায়ের রং ফর্সা করার জন্য। কিন্তু দুঃখজনক বিষয় হল ঐ সকল প্রসাধনী ব্যবহারে একদিকে যেমন ব্যায়বহুল আরেক দিকে ত্বকের ক্ষতি হওয়ারও আশংকা রয়েছে। আমাদের চারপাশে হাটবাজার, বড় বড় শপিং মল গুলোতে কসমেটিকস দোকানগুলোতে গায়ের রং ফর্সা করার দেশি বিদেশি অনেক রকম ক্রিম বা ফেলসিয়াল পাওয়া যায়। এই ক্রিম বা ফেসিয়াল গুলো ত্বকের জন্য কতোটা উপকারে আসে তা হয়তো ব্যবহার না করলে বোঝা যাবে না। 


নামীদামী এই ক্রিমগুলো ব্যবহারের প্রথম দিকে ত্বক উজ্জ্বল হচ্ছে বলে মনে হলও পরবর্তী যখন ক্রিম গুলো ব্যবহার ছেড়ে দিবেন তখন দেখবেন ত্বকের অবস্থা পূর্বের থেকেও আরো কালো হয়ে যাচ্ছে। সবচেয়ে অবাক করার বিষয় হল ঐ সকল নামি-দামি ব্রান্ডের ক্রিম গুলো তৈরি করা হয় বিভিন্ন রাসায়নিক ক্যামিকেল দিয়ে। যা ত্বক স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। তাই আজ আমরা আপনাদেরকে এমন কিছু উপায় বলে দিবো, যার মাধ্যমে আপনি বাড়িতে বসে সহজ ভাবে গায়ের কালো রং ফর্সা করতে পারবেন। চলুন জেনে নেয়া যাক কি সেই কার্যকরী উপায় গুলো- 


এক.

বেসন এবং লেবুর রস দিয়ে তৈরি প্যাকঃ আমরা সকলেই জানি রুপ চর্চায় বেসনের কার্যকরিতা অপরিসীম। সেই সাথে লেবুর মধ্যেও রয়েছে দারুণ  অপকারিতা। বেসন এবং লেবুর রস দিয়ে তৈরি প্যাক টি কিভাবে তৈরি করবেন এবং কি কি লাগবে সেটা জেনে নেয়া যাক। 

★ লেবুর রস ২ চামচ

★বেসন ৩ চামচ

★হলুদ ১ চামচ 

★গোলাপ জল 


প্রথমে একটি পরিস্কার কাচের পাত্রে উপরে উল্লেখিত উপাদান গুলো সামান্য পরিমাণ গোলাপ জল দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে। তারপর আপনি ত্বকের সে অংশে মিশ্রণটি ব্যবহার করবেন সেই অঙ্গ গুলো পানি কিংবা গোলাপ জল দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে। এবার তৈরি করা মিশ্রণটি হাত দিয়ে ত্বকের উপর লাগাতে হবে। ত্বকের উপরে মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয় ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ২ দিন ব্যবহার করলে আপনি পেয়ে যাবেন উজ্জ্বল ও দাগহীন ত্বক। 


দুই. 

দুধ এবং লেবুর রসের প্যাকঃ আমরা সকালে জানি শরীর ও ত্বক উভয়ের জন্য অনেক কার্যকরী। কারণ দুধে এমন কিছু পদার্থ থাকে যা ত্বককে উজ্জ্বল, ফর্সা ও নরমভাব করে তোলে। সুতরাং দুধ এবং লেবুর রস দিয়ে তৈরি প্যাকটি নিয়ম অনুযায়ী যদি ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি স্হায়ী ভাবে গায়ের রং কালো তকে ফর্সা করতে পারবেন। প্যাকটি তৈরি করতে কি কি লাগবে এবং কিভাবে তৈরি করবেন তা নিম্নে বর্ণনা করা হইল। 


★ গরুর দুধ ৩ চামচ 

★ লেবুর রস ২ চামচ 

★ খাঁটি মধু ১ চামচ 

★ হলুদ ১/২ চামচ 


প্রথমে একটি শুকনো কাচের পাত্রের মধ্যে উপরোক্ত উপাদান গুলো ভালোভাবে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এরপর মিশ্রণটি আপনার ত্বকের মধ্যে আস্তে আস্তে লাগিয়ে নিন। যতোক্ষণ পর্যন্ত মিশ্রণটি না শুকায় ততোক্ষণ পর্যন্ত ত্বকের মধ্যে রাখুন। এরপর মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয়ে ভালভাবে ধুয়ে পরিস্কার করে নিন। এভাবে সপ্তাহে একদিন করে ব্যবহার করলে ভাল ফলাফল পাওয়া যায়। তবে অবশ্যই মনে রাখবেন এগুলোতে কোন রকম প্বার্শ-প্রতিক্রিয়া নেই। 


তিন.

পেঁপে এবং ডিমের মাস্কের প্যাকঃ এই প্যাক আপনি খুব সহজেই তৈরি করে নিতে পারবেন। আমরা অনেকে জানি পাকা পেঁপে ও ডিমের মধ্যে অনেক পুষ্টি গুণ রয়েছে। তাই রুপ চর্চায় পাকা পেঁপে ও ডিমের ব্যবহার অনেক বেশি। এই প্যাকটি তৈরি করতে আপনাকে যা যা করতে হবে তা নিচে বর্ণনা করা হল-


★ পাকা পেঁপের রস ৩ চামচ

★ টক দই ২ চামচ

★ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার ৪ চামচ

★ আমন্ড অয়েল ৩ চামচ 

★ গ্লিসারিন 

★ একটি ডিমের সাদা অংশ। 


একটি শুকনো কাচের পাত্রে ডিম ও গ্লিসারিন ছাড়া সকল উপাদান গুলো একত্রে ভালভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর তৈরি হওয়া মিশ্রণটি ফ্রিজের মধ্যে ২ থেকে ৩ ঘন্টা রেখে দিন। তারপর ফ্রিজ থেকে মিশ্রণটি বের করে তার সাথে ডিমের সাদা অংশ ও গ্লিসারিন ঢেলে দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি করুন। শুধু মাত্র এতোটুকুই কাজ তৈরি হয়ে গেল আপনার রুপ চর্চার অন্যতম প্রসাধনী। তৈরি করা পেষ্ট টি মুখে বা ত্বকের যেকোন অংশে লাগিয়ে ২০/২৫ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ভালভাবে ধুয়ে ফেলুন। 


চার.

টমেটো এবং মধু দিয়ে তৈরি প্যাকঃ যাদের তক রোদে পুড়ে কালো ও দাগের সৃষ্টি হয়েছে তাদের জন্য এই প্যাক অত্যান্ত কার্যকরী। সেই সাথে এই প্যাকটি তৈরি করা যায় খুব সহজেই। টমোটো এবং মধু দিয়ে তৈরি প্যাকটিতে যা যা লাগবে সেগুলো এক নজরে দেখে আসুন-


★ মধু ৪ চামচ

★পাকা  টমেটো ১ টি 


প্রথমে একটি শুকনো কাচের বাটির মধ্যে পাকা টমেটোটি ভালভাবে থেঁতলে নিন। এরপর ৪ চামচ পরিমাণ খাঁটি মধু তাতে ঢেলে দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। সকল উপাদান গুলো মিশিয়ে গেলে মিশ্রণটি ব্যবহার উপযোগী হয়ে যাবে। এরপর মিশ্রণরি আপনার ত্বকের উপরে ব্যবহার করুন দেখবেন সাথে সাথে ভাল ফলাফল পাবেন। তবে অবশ্যই মনে রাখবেন মিশ্রটি ত্বকে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ভালো ভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে। এভাবে প্রতি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করলে অল্প দিনের মধ্যে আপনার ত্বকের রোদে পোড়া কালো দাগ চলে যাবে এবং ত্বক হবে অধিক উজ্জ্বল ও মসৃণ। 




Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন